স্কটল্যান্ড পুলিশে হ্যাকিং

স্কটল্যান্ড পুলিশে হ্যাকিং।

স্কটল্যান্ড মেট্রোপলিটান পুলিশের ওয়েবসাইট হ্যাকিংয়ের দায়ে দুই তরুণকে আটক করা হয়েছে। আটককৃত দু’জন মেট্রোপলিটন পুলিশের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে নানারকম উদ্ভট বার্তা পাঠাচ্ছিল।

বিবিসি’র প্রতিবেদনে বলা হয়, জুলাইতে স্কটল্যান্ডের পুলিশের সবচেয়ে বড় শাখা মেট্রোপলিটন পুলিশের ওয়েবসাইট সাইবার আক্রমণের শিকার হয় এবং আক্রমণকারীরা ভেরিফায়েড টুইটার অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করে নানারকম বার্তা পাঠাতে থাকে। টুইটার অ্যাকাউন্টটির অনুসারী রয়েছে প্রায় ১২ লাখ। টুইটার ছাড়াও পুলিশের প্রেস ব্যুরোর মেইল থেকেও অনাকাঙ্খিত বার্তা পাঠাতে থাকে তারা।

আটককৃতদের একজনের বয়স ১৮ আরেকজনের ১৯ এবং তারা লুসিমাউথ এবং গ্ল্যাসগোর বাসিন্দা বলে জানানো হয়েছে।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প হ্যাকিংয়ের এই ঘটনাকে লন্ডনের মেয়র সাদিক খানের ওপর এক হাত নেওয়ার জন্য ব্যবহার করেছেন। ট্রাম্প তার টুইট বার্তায় বলেন, “লন্ডনে অযোগ্য মেয়র নিয়ে আপনি কখনই নিরাপদ রাস্তা পাবেন না”।

স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড আগেই জানিয়েছে যে, তাদের ওয়েবসাইটে অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ জানায়, তারা বার্তা প্রচার করার জন্য ‘মাইনিউজডেস্ক’নামে একটি অনলাইন সেবা ব্যবহার করেছে। এতে আরও বলা হয়, হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে তাদের ওয়েব সাইট, টুইটার অ্যাকাউন্ট এবং ইমেইলের মাধ্যমে “অনাকাঙ্ক্ষিত বার্তা”গ্রাহকদের কাছে পাঠিয়েছে হ্যাকাররা।

টুইটগুলোতে অনেক আপত্তিকর কথা বলা ছিল। আবার অনেক ব্যক্তির নামও উল্লেখ ছিল। পরবর্তীতে সেই টুইটগুলো মুছে ফেলা হয়েছে। তরুণদের একজন ড্রিল র‌্যাপার ডিগ্গা ডি’র (আসল নাম রিস হারবার্ট) মুক্তি দাবি করে। ধারাল অস্ত্রবাহক একটি দলের সঙ্গে থাকার অপরাধে তার জেল হয়েছিল।

স্কটল্যান্ড পুলিশের একজন মুখপাত্র বলেন, “এ বিষয়ে একটি অভিযোগ আদালতে পাঠানো হয়েছে”।

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here