টিআরএনবি`র সংগে টেলিকম মন্ত্রী মোস্তফা জব্বারের বৈঠক

বৃহস্পতিবার (১৯ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার টেলিকম বিটে কর্মরত সাংবাদিকদের সংগঠন টিআরএনবির সদস্যদের সংগে মত বিনিময় সভা করেন। টিআরএনবি সভাপতি মুজিব মাসুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভাটি পরিচালনা করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল আনোয়ার খান শিপু। অনুষ্ঠানে মাননীয় মন্ত্রীর পাশাপাশি বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি শাহেদ সিদ্দিকী, সজল জাহিদ, রাশেদ মেহেদী, শামীম আহমেদ প্রমুখ। সভায় উপিস্থত ছিলেন কাজী সোহাগ, তারেক মোরতাজা, শাহিদ বাপ্পী, হিটলার এ হালিম, এসএম আফসারুল ইসলাম সুমন (সুমন আফসার), ফারুক হোসাইন, মোহাম্মদ শামীম, আল আমিন দেওয়ান, ইসমাইল হোসেন, রাজিব আহমেদ, মুর্তজা জাহিদ প্রমুখ।

সকাল সাড়ে ১১টায় মন্ত্রনালয়ের বোর্ড রুমে সভা শুরু হয়। শুরুতে মন্ত্রী টিআরএনবি সদস্যদের সভায় উপস্থিত হওয়ার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। এরপর টিআরএনবি সাধারণ সম্পাদক সংগঠনের বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে বক্তব্য তুলে ধরেন। মন্ত্রীর বক্তব্যের পর একে একে ধন্যবান জানিয়ে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সিনিয়র সদস্যরা।

মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার তার বক্তব্যে বলেন আগামীতে টেলিকম সেক্টরটি বাংলাদেশের উন্নয়নে বড় ধরনের ভুমিকা রাখবে। কাজেই এই সেক্টরে কাজ করা সাংবাদিকদেরকেও  এখন থেকে সব ক্ষেত্রে বড় ভুমিকা রাখার আহবান জানান। তিনি বলেছেন, আসছে টেলিকম মেলায় ১৪টি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। এসব সেমিনারে টিআরএনবি সদস্যদের উপস্থিত থাকার আহবান জানান তিনি। আগামীতে টিআরএনবি সদস্যদের নিয়ে একটি আবাসিক ওয়ার্কশপ কিংবা সেমিনার আয়োজন করারও আশ্বাস দেন। এছাড়া টিআরএনবি যদি কোন সভা সেমিনার কিংবা ওয়ার্কশপ এর আয়োজন করেন সেখানে উপস্থিত থাকার আশ্বাস দেন।

মন্ত্রী সভায় টেলিকম সেক্টরের বিভিন্ন উন্নয়ন অগ্রগতি এবং সেক্টরের ভাল খারাপের তথ্য তুলে ধরেন। তিনি বলেন, টেলিকম সেক্টরের বিনিয়োগের জন্য ৬ টি দেশ আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করছে। শুধু ফাইভজি অপারেটর হবার জন্য একটি দেশ আগ্রহ দেখিয়েছে। সভায় তিনি ইন্টারনেটের দাম কমানোর বিষয়ে এবং দেশব্যাপী ইন্টারনেট ব্যবসায় হাজার হাজার অবৈধ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সবাইকে মিলে কাজ করার আহবান জানান। মন্ত্রী এনটিটিএন সেবায় নতুন একটি অপারেটরকে লাইসেন্স দেয়া এবং টাওয়ার শেয়ারিং নীতিমালার বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। তিনি মোবাইল ফোন গ্রাহকদের হয়রানি ও সেবা পাওয়া নিয়ে সাংবাদিকদের বিস্তারিত তথ্য দেন।

তিনি ২০২০ সালের মধ্যে দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা পেৌছে দেয়ার ব্যাপারে আশ্বস্থ করেন। সভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

তিনি টিআরএনবি প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও ফ্যামেলি ডে তে অংশ নিবেন বলে আশ্বস্থ করেন। সভা শেষে সংগঠনের সভাপতি মুজিব মাসুদ সবাইকে ধন্যবান জানিয়ে সভা শেষ করেন। সভায় মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র জনসংযোগ কর্মকর্তা সাফায়েত আহম্মেদ উপস্থিত ছিলেন।

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here