আইসিটিতে বাংলাদেশের অগ্রগতির প্রশংসা করলেন রানি ম্যাক্সিমা

আইসিটিতে বাংলাদেশের অগ্রগতির প্রশংসা করলেন রানি ম্যাক্সিমা।

বাংলাদেশে সফররত নেদারল্যান্ডসের রানি ম্যাক্সিমা সচিবালয়ে ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ পরিদর্শন করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) পরিদর্শন শেষে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সঙ্গে তার দফতরে আয়োজিত বৈঠকে রানি ম্যাক্সিমা নেদারল্যান্ডস-বাংলাদেশের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বা আইসিটি খাতে সহযোগিতা অব্যাহত রাখার সংকল্প ব্যক্ত করেন বলে বিভাগটি থেকে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এতে বলা হয়, বৈঠকে তারা বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডসের মধ্যে পারস্পরিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় বিশেষ করে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ এ খাতের অগ্রগতি সংক্রান্ত বিভিন্ন বিয়য়াদি নিয়ে আলোচনা করেন।

এছাড়া উভয়েই দু’দেশের মধ্যে বিদ্যমান চমৎকার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হবে বলে আশা প্রকাশ করেন এবং এ লক্ষ্যে একযোগে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

এসময় বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডস বন্ধুপ্রতিম দুই দেশের সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর এবং ঐতিহাসিক উল্লেখ করে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, ১৯৭২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি নেদারল্যান্ডস বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়। মন্ত্রী ২০১৫ সালের নভেম্বরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেদারল্যান্ডস সফরকে দু’দেশের সম্পর্কের ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা হিসেবে অভিহিত করেন।

তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশে সরকারের গৃহীত বিভিন্ন কর্মসূচি তুলে ধরে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত দেশে তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে প্রতিবছর ১০ হাজার প্রোগ্রামার তৈরির দূরদৃষ্টি সম্পন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেন। কম্পিউটার সহজলভ্য করতে এর ওপর থেকে ভ্যাট-ট্যাক্স প্রত্যাহারসহ বেশ কিছু যুগান্তকারী কর্মসূচি গ্রহণ করেন। ২০০৮ সালে ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষণা এবং এরই ধারবাহিকতায় গত ১০ বছরে দেশে তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশে বৈপ্লবিক পরিবর্তন সূচিত হয়। দেশের প্রতিটি দুর্গম এলাকাতেও ব্রডব্যান্ড নেটওয়ার্ক পৌঁছে গেছে। ডাক বিভাগকে ডিজিটালাইজড করা হয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তির সুযোগ কাজে লাগাতে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাসহ যুগান্তকারী কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগের আওতায় এসেছে জানিয়ে মোস্তাফা জব্বার রানিকে জানান, এসব অঞ্চলের মানুষ তথ্যপ্রযুক্তির সুবিধা ভোগ করছে।

বৈঠকে ডিজিটাল ফিনান্সিয়াল অন্তর্ভুক্তি, ডিজিটাল নিরাপত্তা, ইন্টার-অ্যাকটিভিটিজ জোরদার, ডিজিটাল সিস্টেমে এনআইডি অন্তর্ভুক্তি, ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারে নারীর সম্পৃক্ততা বৃদ্ধি, ডিজিটাল প্রশিক্ষণসহ প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন বিষয়ে রানি তার অভিজ্ঞা তুলে ধরেন এবং পরামর্শ দেন বলে জানানো হয়।

বৈঠককালে নেদারল্যান্ডসের রানি তথ্যপ্রযুক্তিসহ অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অগ্রগতির প্রশংসা করেন।

বৈঠকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান জহিরুল হক, ডাক বিভাগের মহাপরিচালক এসএস ভদ্র এবং মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here